সোনারগাঁয়ে মারা গেলেন খালেদা জিয়া!

নারায়ণগঞ্জ মেইল: বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে জীবিত অবস্থাতেই মেরে ফেলেছে সোনারগাঁ উপজেলা বিএনপির দায়িত্বপ্রাপ্তরা। অতিসম্প্রতি সোনারগাঁও উপজেলার আওতাধীন দশটি ইউনিয়ন বিএনপি’র আহবায়ক কমিটি ঘোষণা করা হয়। সংগঠনের নিজস্ব প্যাডে আহবায়ক আজহারুল ইসলাম মান্নান এবং সদস্য সচিব মোশাররফ হোসেন স্বাক্ষরিত সেই কমিটি ঘোষণায় দেখা যায় প্যাডের উপরে লেখা আছে ‘খালেদা জিয়া অমর হোক’। সাধারণত মৃত ব্যক্তিদের কর্মগুণে বাঁচিয়ে রাখার চেষ্টায় ব্যবহৃত হয়ে থাকে ‘অমর’ শব্দটি। যেমন বিএনপির নেতাকর্মীরা বিভিন্ন ব্যানার পোস্টারে লিখে থাকেন ‘শহীদ জিয়া অমর হোক’। কোনো জীবিত মানুষের ক্ষেত্রে এমনটা কখনো লেখা হয়না বা বলা হয় না।

এদিকে দলীয় চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে জীবিত অবস্থায় মেরে ফেলতে চাওয়ার ঘটনায় নিন্দার ঝড় বয়ে যাচ্ছে স্থানীয় বিএনপি নেতাকর্মীদের মাঝে। তাদের মতে উপজেলা বিএনপি’র কমিটিতে শিক্ষিত এবং দক্ষ নেতৃত্ব না থাকায় এ ধরনের ঘটনা ঘটেছে। এজাতীয় ভুল ক্ষমার অযোগ্য বিবেচনায় পরবর্তীতে কমিটি গঠনের ক্ষেত্রে শিক্ষিত এবং দক্ষ লোকদেরকে অগ্রাধিকার দেওয়ার দাবি তৃণমূলের।

অপরদিকে সোনারগাঁ থানার দশটি ইউনিয়ন বিএনপি’র কমিটি ঘোষণার পর থেকেই চলছে পদত্যাগ। ইতিমধ্যে বেশ কয়েকটি ইউনিয়নের যুগ্ম আহ্বায়ক এবং কার্যকরী সদস্য পদ পাওয়া নেতা পদত্যাগ করেছেন। এদের মধ্যে সনমান্দী ইউনিয়ন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট আব্দুর রহিম, যুগ্ম আহ্বায়ক মোঃ স্বপন, ফজলুল হক ও সদস্য পিয়ার আলী, বৈদ্যারবাজার ইউনিয়ন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক মোঃ মোক্তার হোসেন মিন্টু, শম্ভুপুরা ইউনিয়ন বিএনপি’র কার্যকরী সদস্য আব্দুল জব্বার ইতিমধ্যে পদত্যাগপত্রে স্বাক্ষর করেছেন। রাগে, ক্ষোভে আর হতাশায় আরো অনেক ত্যাগী বিএনপি নেতা ইউনিয়ন কমিটি থেকে পদত্যাগের প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে জানা গেছে।

Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments

নারায়ণগঞ্জ মেইলে এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

সর্বশেষ