গাবতলীর সেই গ্যাংস্টার বাহিনীর বিরুদ্ধে মামলা

ফতুল্লা প্রতিনিধি: ফতুল্লার গাবতলী এলাকায় গ্যাংস্টার বাহিনীর অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছেন স্থানীয়রা। এই বাহিনীর সাত সদস্যকে পিস্তল, গুলি ও অত্যাধুনিক অস্ত্রসহ গ্রেফতার করেছিল র্যাব-১১। জামিনে এসে সম্প্রতি এ বাহিনীর তাণ্ডব আরো বেড়ে যাওয়ায় এলাকাবাসী অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছেন। সর্বশেষ গাবতলী এলাকার গত ১৪ ও ১৫ জানুয়ারি গ্যাংস্টার বাহিরের হামলায় অন্তত ৫ জন আহত হয়েছে। এ ঘটনায় গ্যাংস্টার বাহিনীর ১৭ জনের নাম উল্লেখ করে ফতুল্লা মডেল থানায় মামলা করেছে ভুক্তভোগী আবু বক্কর সিদ্দিক।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, গত ১৪ জানুয়ারি গ্যাংস্টার বাহিনীর সদস্যরা মহিলাদের কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য ও এলাকায় মহড়া দিলে ভুক্তভোগী আবু বক্কর প্রতিবাদ করলে তাদের ওপর হামলা চালায় গ্যাংস্টার বাহিনী। পরে ভুক্তভোগী আবু বক্কর ফতুল্লা থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

অভিযুক্তরা হলেন গাবতলীর নতুন বাজার ছোট মসজিদ এলাকার আকবর মিয়ার ছেলে উজ্জল (৩৭), গাবতলী আইডিয়াল স্কুল সংলগ্ন হাসেমের ছেলে ইমরান (৩৮), ব্যাংক টাউনের সামনের দুলাল মিয়ার ছেলে সাদ্দাম ওরুফে বল্টু (৩৫), লালমিয়ার চটপটির দোকানের সামনের আমজাদের শাওন (৩৩), ব্যাংক টাউনের সামনের মাজেদের ছেলে রুবেল ওরফে মাষ্টার রুবেল (৩৬), মাসদাইরের জহিরের ছেলে পারভেজ (৩২), কেতাবনগরের থাই মাসুদের ছেলে উৎস (৩০), ব্যাংক টাউনের সামনের মৃত হেলালের ছেলে আনিক (৩৪), এলাহীর ছেলে শাহীন (৩২), লিয়াকত মিয়ার ভাড়াটিয়া ওয়াজেদ মিয়ার ছেলে রফিক (৪০), গাবতলী আইডিয়াল স্কুলের সামনের মেহেদীর ছেলে শাওন (২৫), ব্যাংক টাউনের সামনের মনুর ভাগিনা সুমন (২৭), লাল মিয়ার ছেলে আকবর (৩৫), মিছির আলীর ছেলে আরিফ (২৮), পাগলা খোকনের ছেলে জীবন (২৮) ও ধর্মগঞ্জের আল-আমিন (৩৭)।

এছাড়াও ১৪ জানুয়ারি নেছার আহাম্মেদ নামে এক ব্যক্তিকে মারধর করে একটি ষ্ট্যাম্পে স্বাক্ষর নেয় গ্যাংস্টার বাহিনীর সদস্যরা। এঘটনায়ও ফতুল্লা মডেল থানায় অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগী নেছার আহাম্মেদ।

Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments

নারায়ণগঞ্জ মেইলে এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

সর্বশেষ

You cannot copy content of this page