বিপাকে সেন্টু অনুসারীরা

নারায়ণগঞ্জ মেইল: বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপিতে ব্যক্তির চেয়ে দল বড় নীতি অবলম্বন করার কথা থাকলেও নারায়ণগঞ্জ বিএনপি’র নেতাকর্মীরা ব্যক্তিকেন্দ্রিক রাজনীতিতেই অভ্যস্ত। নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার কুতুবপুর ইউনিয়নে এক সময় বিএনপির হেভিওয়েট নেতা ছিলেন মনিরুল আলম সেন্টু। কিন্তু বিএনপি’র সাইনবোর্ড ব্যবহার করে আওয়ামী লীগ নেতাদের সাথে দহরম মহরমের কারণে এবং দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের অপরাধে তাকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়। দল থেকে বহিষ্কৃত হলেও স্থানীয় বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীদের রাজনৈতিক অভিভাবক ছিলেন মনিরুল আলম সেন্টু। বিএনপি নেতা সেন্টু এবার আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান হওয়ার লোভে দলীয় নীতি নৈতিকতা বিসর্জন দিয়ে আওয়ামী লীগের দলীয় প্রতীক নৌকা নিয়ে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করছেন। রাজনৈতিক অভিভাবকের এমন পল্টিবাজিতে বিপাকে পড়েছেন তার অনুসারী বিএনপির অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা।

যদিও বিষয়টি পুরোপুরি অস্বীকার করেছেন মনিরুল আলম সেন্টুর অনুসারী বিএনপি নেতা ও বর্তমান জেলা যুবদলের সভাপতি শহীদুল ইসলাম টিটু। তিনি এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ মেইলকে বলেন, মনিরুল আলম সেন্টু আওয়ামী লীগের দলীয় প্রতীক নৌকা নিয়ে নির্বাচন করছেন, তার মানে তিনি আওয়ামী লীগের রাজনীতি করবেন। আমরা শহীদ জিয়ার আদর্শে উজ্জীবিত বিএনপির রাজনীতিতে অতীতে যেমন ছিলাম ভবিষ্যতেও তেমনি থাকবো।

যুবদল সভাপতি টিটু আরো বলেন, অতীতেও কোনদিন মনিরুল আলম সেন্টু বিএনপি’র মনোনয়নে চেয়ারম্যান নির্বাচন করেননি। সব সময় তিনি স্বতন্ত্র নির্বাচন করেছেন। এবার তিনি আওয়ামী লীগের দলীয় প্রতীকে নির্বাচন করবেন যেটা একান্তই তার ব্যক্তিগত বিষয়। এর সাথে আমাদের রাজনৈতিক কোন সম্পর্ক নেই। আমরা বিএনপির রাজনীতির সাথে আগেও যেমন ছিলাম এখনো তেমনি থাকবো।

সহিদুল ইসলাম টিটু অস্বীকার করলেও সেন্টু অনুসারী কয়েকজন যুবদল নেতা নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, আমরা যারা সেন্টু অনুসারী নেতাকর্মীরা আছি তারা কোনোভাবেই মেনে নিতে পারছি না। চিৎকার করে কাঁদতে পারলে ভালো লাগতো, বুকটা ফেটে যাচ্ছে। দুঃখের কথা কাউকে বলতেও পারছি না, সহ্যও করা যাচ্ছে না। এটা আমাদের রাজনৈতিক পথচলায় একটা বিশাল ধাক্কা।

Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments

নারায়ণগঞ্জ মেইলে এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

সর্বশেষ

You cannot copy content of this page