Home রাজনীতি বি.এন.পি আওয়ামীলীগ হিরো আলমকেও ভয় পায়: সাখাওয়াত

আওয়ামীলীগ হিরো আলমকেও ভয় পায়: সাখাওয়াত

আওয়ামীলীগ হিরো আলমকেও ভয় পায়: সাখাওয়াত

নারায়ণগঞ্জ মেইল: নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খান বলেছেন, এ সরকারের অধীনে কোন নির্বাচন হবে না। আমরা এ নির্বাচন কমিশন বিলুপ্ত চেয়েছি। বগুড়াতে হিরে আলমকেও আওয়ামী লীগ সহ্য করাতে পারে না। হিরো আলমরাও নির্বাচনে আওয়ামী লীগের কাঁপন ধরিয়েছে। কারন তারা জানে মানুষ তাদের ভোট দিবে না। তাই তারা হিরো আলমকেও ভয় পায়।

 

বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা ও শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৮৭তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির উদ্যোগে আয়োজিত আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। বৃহস্পতিবার (১৯ জানুয়ারি) বিকেলে শহরের মিশন পাড়া এলাকায় এ আয়োজন করা হয়।

 

অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত বলেন, গ্যাসের দাম আবারও বাড়ানো হয়েছে। আগামীতে যে পন্য উৎপাদন হবে সেখানে দাম হুহু করে বাড়বে। আমাদের দলের চেয়ারম্যান যে দশ দফা দিয়েছে সেই দশ দফা আমরা আদায় করে ছাড়বো।

 

তিনি বলেন, জিয়াউর রহমান এ দেশের মানুষের আশা ও আকাঙ্ক্ষার প্রতীক ছিলেন। তিনি পাকিস্তানি সেনাবাহিনীতে মেজর হিসেবে দায়িত্ব পালনের সময় ১৯৭১ সালে পাকিস্তানিরা যখন বাঙালিদের ওপর ঝাঁপিয়ে পড়েছিল আজ যারা এদেশের নেতৃত্বে তারা সেদিন আত্মগোপনে ছিল। পশ্চিমাদের কাছে তারা আত্মসমর্পণ করেছিল। সে সময় সেনাবাহিনীর অনেক বড় বড় অফিসার ছিল। তারা কোন বক্তব্য দেয়নি। সেদিন শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান যুদ্ধ ঘোষণা করেছিলেন।

 

সেদিন তিনি শুধু স্বাধীনতার ঘোষণা দিয়ে থেমে থাকেননি। তিনি যুদ্ধ করেছিলেন। তিনি চাইলে ক্ষমতা নিতে পারতেন কিন্তু তিনি তা করেননি। তিনি ব্যরাকে ফিরে গিয়েছিলেন।

 

তিনি আরো বলেন, আওয়ামী লীগ সকল রাজনৈতিক দল বন্ধ করে দিয়েছিল। বাকশাল গঠন করা হয়েছিল। সেদিন মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকার ছিল না। আপনারা দেখেছেন এই আওয়ামী লীগের আমলে মানুষ লজ্জা নিবারনের জন্য জাল গায়ে জড়িয়েছে৷ তারা আজ আবার এ বাংলাদেশকে তলাবিহীন ঝুড়িতে পরিনত করছে৷ এ সরকারের মধ্যে গণতান্ত্রিক কোন বৈশিষ্ট্য নেই।

 

নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির আহবায়ক অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খানের সভাপতিত্বে এবং সদস্য সচিব অ্যাডভোকেট আবু আল ইউসুফ খান টিপুর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভা শেষে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের বিদেহী আত্মার শান্তি কামনায় এবং বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া ও ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান সুস্বাস্থ্য এবং দীর্ঘায়ু কামনায় বিশেষ মোনাজাত পরিচালিত হয়। মোনাজাত পরিচালনা করেন মহানগর উলামা দলের সাধারণ সম্পাদক হাফেজ মামুন।

 

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক এড. সরকার হুমায়ূন কবির, মনির হোসেন খান, আনোয়ার হোসেন আনু, এম এইচ মামুন, সদস্য ডা. মজিবুর রহমান, এড. এইচ এম আনোয়ার প্রধান, মাসুদ রানা, মাহমুদুর রহমান, বরকত উল্লাহ, হাবিবুর রহমান দুলাল, রাশিদা জামাল, কামরুল হাসান চুন্নু সাউদ, শাহিন আহমেদ, মাকিত মোস্তাকিম শিপলু, ফারুক হোসেন, মহানগর যুবদলের আহ্বায়ক মমতাজ উদ্দিন মন্তু, সদস্য সচিব মনিরুল ইসলাম সজল, সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক সাগর প্রধান, মহানগর ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি মাজহারুল ইসলাম জোসেফ, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক সাখাওয়াত ইসলাম রানা, মহানগর যুবদলের সাবেক সহ সাধারণ সম্পাদক সহিদুল ইসলাম, মহানগর বিএনপি নেতা নুর মোহাম্মদ পনেছ, নাজমুল হক রানা, নাজমুল হক, আবুল হোসেন রিপন, ধামগড় ইউনিয়ন বিএনপির সমন্বয়ক জাহিদ খন্দকার, গোগনগর ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর হোসেন মিয়াজী, আলীরটেক ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন, মহানগর যুবদলের সাবেক সহ- সম্পাদক মো. শহিদুল্লাহ, মহানগর ছাত্রদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মমিনুর রহমান বাবু, মহানগর শ্রমিকদলের আহ্বায়ক এস এম আসলাম, সাধারণ সম্পাদক ফারুক হোসেন, মহানগর তাঁতীদলের আহ্বায়ক মীর আলমগীর হোসেন, সদস্য সচিব ইকবাল হোসেন, মহানগর মহিলা দলের সভানেত্রী দিলারা মাসুদ ময়না, সিদ্ধিরগঞ্জ থানা ছাত্রদলের আহ্বায়ক রাকিবুর রহমান সাগর, মহানগর জাসাসের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর হোসেন স্বাধীন, মহানগর ওলামা দলের সাধারণ সম্পাদক হাফেজ মামুনসহ অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments