আইনজীবীদের প্রতি এড. আনোয়ার প্রধানের কৃতজ্ঞতা

নারায়ণগঞ্জ মেইল: শেষ হয়েছে বহুল আলোচিত জেলা জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের নির্বাচন। নির্বাচনে যুগ্ম-সম্পাদক পদে বিপুল ভোটে বিজয়ী হয়েছেন এড. এইচএম আনোয়ার প্রধান। নির্বাচনে তাকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করায় জেলা জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের সকল আইনজীবীকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেছেন তিনি।

গণমাধ্যমে পাঠানো এক বার্তায় আনোয়ার প্রধান জানান, আইনজীবীদের ভালোবাসায় আমি মুগ্ধ। তাদের এই ঋণ আমি কোনদিন শোধ করতে পারব না। আমার উপর যে গুরুদায়িত্ব তারা অর্পণ করেছেন, তা সততা এবং নিষ্ঠার সাথে পালন করার যথাসাধ্য চেষ্টা করব। আইনজীবী ভাই ও বোনদের উন্নয়নে সকলকে সাথে নিয়ে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করবো। অতীতের মতো আগামী দিনগুলোতেও সকলের সহযোগিতা কামনা করছি।

প্রসঙ্গত, জেলা জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের নির্বাচনে এড. সরকার হুমায়ুন কবীর-এড. আবুল কালাম আজাদ জাকির প্যানেলের সকল প্রার্থী বিপুল ভোটে জয়লাভ করেছে। নির্বাচনে যুগ্ম সম্পাদক পদে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীকে উড়িয়ে দিয়ে বিজয় ছিনিয়ে এনেছেন এড. এইচএম আনোয়ার প্রধান। নির্বাচনে এ পদে প্রার্থী ছিলেন না এড. আনোয়ার বিন্তু শেষ মুহুর্তের নাটকীয়তায় সিনিয়রদের নির্দেশনায় এবং জুনিয়রদের অনুরোধে প্রার্থী হতে হয় তাকে। তবে সকলের এই আস্থার প্রতিদান তিনি দিয়েছেন বিপুল ভোটে জয়লাভ করে।

সূত্রে প্রকাশ, বিএনপির আইনজীবীদের সংগঠন জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের নির্বাচনে ৫টি পদে অনুষ্ঠিত হয়েছে। এর মধ্যে যুগ্ম সম্পাদক পদে লড়েছেন এড. এইচএম আনোয়ার প্রধান ও এড. আনিসুর রহমান মোল্লা। তবে নির্বাচনের তফসিল ঘোষনার আগে সম্ভাব্য প্রার্থী তালিকায় যুগ্ম সম্পাদক পদে নাম ছিলো এড. মাসুদা বেগম শম্পার। তবে সকলের সাথে আলাপ আলোচনার পরে সিনিয়র জুনিয়র সবার মতামতের ভিত্তিতে এ পদে প্রার্থী করা হয় এড. এইচএম আনোয়ার প্রধানকে। আর এড. আনোয়ার প্রধান প্রার্থী হওয়ায় নির্বাচনের আগেই এড. আনিসুর রহমান মোল্লার বিদায় ঘন্টা বেজে গিয়েছিলো। কারন জনপ্রিয়তা আর গ্রহনযোগ্যতায় আনোয়ার প্রধানের ধারেকাছেও ভীড়তে পারবেন না আনিস মোল্লা। আর তাই আনোয়ার প্রধানকে পরাস্ত করতে ভিন্ন কৌশল খুঁজেও ব্যর্থ তার প্রতিপক্ষ।

প্রসঙ্গত, বিএনপির আইনজীবীদের সংগঠন জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম নারায়ণগঞ্জ জেলা কমিটির নির্বাচনে এড. সরকার হুমায়ুন কবীর-এড. আবুল কালাম আজাদ জাকির প্যানেল ৫টি পদের সবগুলিতে জয়লাভ করেছে। সভাপতি পদে এড. সরকার হুমায়ুন কবীর, সাধারণ সম্পাদক পদে এড. আবুল কালাম আজাদ জাকির, সিনিয়র সহ সভাপতি পদে এড. আজিজুল হক হান্টু, যুগ্ম সম্পাদক পদে এড. এইচএম আনোয়ার প্রধান ও সাংগঠনিক সম্পাদক পদে এড. একেএম ওমর ফারুক নয়ন প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের বিপুল ভোটে পরাজিত করে বিজয়ী হয়েছেন।

৯ ডিসেম্বর বুধবার নারায়ণগঞ্জ আদালতপাড়ায় এই সম্মেলনের ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। সম্মেলনে তৈমূর আলম অনুগামীদের প্যানেল থেকে প্রতিদ্বন্ধিতা করে সভাপতি পদে অ্যাডভোকেট আব্দুল হামিদ খান ভাসানী ভুঁইয়া পেয়েছেন ১২৪ ভোট, সেক্রেটারি পদে অ্যাডভোকেট আজিজ আল মামুন পেয়েছেন ৯১ ভোট, সিনিয়র সহ-সভাপতি পদে অ্যাডভোকেট সীমা সিদ্দিকী পেয়েছেন ১১২ ভোট, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদে অ্যাডভোকেট আনিসুর রহমান মোল্লা ১১৫ ও সাংগঠনিক সম্পাদক পদে অ্যাডভোকেট আলী হোসাইন পেয়েছেন ১১৬ ভোট।

অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খান অনুগামী প্যানেলের সভাপতি প্রার্থী অ্যাডভোকেট সরকার হুমায়ুন কবির পেয়েছেন ১৪৭ ভোট, সেক্রেটারি পদে অ্যাডভোকেট আবুল কালাম আজাদ জাকির পেয়েছেন ১৬৯ ভোট, সিনিয়র সহ-সভাপতি পদে অ্যাডভোকেট আজিজুল হক হান্টু পেয়েছেন ১৫৯ ভোট, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদে অ্যাডভোকেট এইচএম আনোয়ার প্রধান পেয়েছেন ১৪৫ ভোট ও সাংগঠনিক সম্পাদক পদে অ্যাডভোকেট একেএম ওমর ফারুক নয়ন ১৫৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন।

এ ছাড়াও এককভাবে সাধারণ সম্পাদক সম্মেলনে ভোটের লড়াইয়ে করেছেন অ্যাডভোকেট সুমন মিয়া। তিনি পেয়েছেন ১০ ভোট।

নির্বাচনে মোট ভোটার ছিলেন ৩০৮ জন আইনজীবী। ভোট প্রদান করেছেন ২৭৬ জন আইনজীবী। নির্বাচন কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট আবুল কালাম আজাদ বিশ্বাস, অ্যাডভোকেট আব্দুল বারী ভুঁইয়া ও অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খান।

Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments

নারায়ণগঞ্জ মেইলে এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

সর্বশেষ